Begum Hazrat Mahal National Scholarship

বেগম হজরত মহল ন্যাশনাল স্কলারশিপ ২০২২ | Begum Hazrat Mahal National Scholarship 2022

Last Updated on April 29, 2022 by Science Master

Begum Hazrat Mahal National Scholarship

বেগম হজরত মহল ন্যাশনাল স্কলারশিপ (Begum Hazrat Mahal National Scholarship) হল মেধাবী সংখ্যা লঘু ছাত্রীদের জন্য। এই স্কলারশিপটি আগে ” মৌলানা আজাদ ন্যাশনাল স্কলারশিপ (Maulana Azad National Scholarship)” নামে পরিচিত ছিল। ২০০৩ সালে নতুন দিল্লির বিজ্ঞান ভবনে সংখ্যা লঘু সম্প্রদায়ের শিক্ষাগত এবং অর্থনৈতিক উন্নতির জন্য অনুষ্ঠিত এক ন্যাশনাল কনফারেন্সে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী আটল বিহারী বাজপেয়ী এই স্কলারশিপটি চালু করেন।

উদ্দেশ্য এবং লক্ষ্য (Objective and Scope):

সংখ্যা লঘু সম্প্রদায়ের যে সমস্ত ছাত্রীরা অর্থনৈতিকভাবে দূর্বল অর্থাৎ যারা অর্থের জন্য পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারছে না তাদের এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই এই স্কলারশিপের উদ্দেশ্য। স্কুল বা কলেজে ভর্তির ফি, বই বা অন্যান্য শিক্ষা সামগ্রি কেনার জন্য এবং হোস্টেল ফি দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা যাবে।

আবেদনের পদ্ধতি (Application Procedure):

এই স্কলারশপটির জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদন করার জন্য ন্যাশনাল স্কলারশিপ পোর্টালে (NSP) গিয়ে আবেদন করতে হবে বা নিচে দেওয়া ক্লিক করেও এই স্কলারশিপটিতে আবেদন করা যাবে।

Apply Now

স্কলারশিপের পরিমান (Scholarship Amount):

বেগম হজরত মহল ন্যাশনাল স্কলারশিপ (Begum Hazrat Mahal National Scholarship) মূলত নবম, দশম, একাদশ এবং দ্বাদশ শ্রেণীর জন্য দেওয়া হয়। প্রতি ক্লাসের স্কলারশিপের পরিমান নিচে দেওয়া হলো।

ক্লাস স্কলারশিপের পরিমান
নবম শ্রেণী ৫০০০ টাকা
দশম শ্রেণী ৫০০০ টাকা
একাদশ শ্রেণী ৬০০০ টাকা
দ্বাদশ শ্রেণী ৬০০০ টাকা
Begum Hazrat Mahal National Scholarship

যোগ্যতা (Eligible Criteria):

১.শুধুমাত্র মুসলিম, খ্রিষ্টান, শিখ, বৌদ্ধ এবং জৈন সম্প্রদায়ের সংখ্যা লঘু ছাত্রীরা আবেদন করতে পারবে।

২. স্কলারশিপটি নবম শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত সংখ্যা লঘু সম্প্রদায়ের ছাত্রীদের, যাদের ফাইনাল পরীক্ষায় কমপক্ষে ৫০ % নম্বর আছে তাদের দেওয়া হবে।

৩. আবেদনকারীর পিতা বা অভিভাবকের বার্ষিক আয় যেন ২ লক্ষ এর বেশি না হয়।

৪. পিতা বা অভিভাবকের বার্ষিক আয়ের সার্টিফিকেট (Income certificate) অবশ্যই লাগবে।

৫. একজন ছাত্রী কেন্দ্র সরকারের দেওয়া একটি মাত্র স্কলারশিপে আবেদন করতে পারবে।

৬. অনলাইন আবেদন করার সময় যে আধার নম্বরটি দেওয়া হবে সেটিই যেন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউণ্টের সঙ্গে লিঙ্ক করানো থাকে। কারন আধার যে অ্যাকাউণ্টের সঙ্গে লিঙ্ক থাকবে স্কলারশিপের টাকা সেই অ্যাকাউণ্টে আসবে।

ব্যাঙ্ক অ্যাকাউণ্ট সংক্রান্ত নির্দেশাবলী (Instraction Related to bank Account):

১.অনলাইনে আবেদন করার সময় ড্রপ ডাউন লিস্ট থেকে সঠিক ব্যাঙ্কের নাম ও শাখা সিলেক্ট করেতে হবে।

২. আবেদন করার সময় ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর ও IFSC কোড সঠিক ভাবে পূরন করতে হবে।

৩. ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট হোল্ডারকে ব্যাঙ্ক থেকে তার KYC স্ট্যাটাস চেক করে নেওয়া জরুরী। স্কলারশিপের অ্যামাউণ্ট ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে আসার জন্য KYC থাকে জরুরী।

৪. স্কলারশিপের টাকা না ঢোকা পর্যন্ত যেন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সক্রিয় থাকে।

৫. ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সেই ব্যাঙ্ক থেকেই করতে হবে যাদের কোরব্যাঙ্কিং ফ্যাসিলিটি আছে ।

৬. ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট অবশ্যই আবেদনকারীর নামে বা পিতা / মাতার সঙ্গে জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট হতে হবে।

রিনুয়ালের ক্ষেত্রে (Renewal of Application):

বেগম হজরত মহল ন্যাশনাল স্কলারশিপ (Begum Hazrat Mahal National Scholarship) রিনুয়ালের কোনো সুযোগ নেই। প্রতি ক্লাসে অর্থাৎ নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত নতুন করে আবেদন করতে হবে।

গুরুত্বপূর্ণ তারিখ (Important Dates):

Application StartsLast Date of Application
Notify soonNotify soon

আরও দেখুনঃ স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট-কাম-মিনস স্কলারশিপ মাইনোরিটি ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য

1 thought on “বেগম হজরত মহল ন্যাশনাল স্কলারশিপ ২০২২ | Begum Hazrat Mahal National Scholarship 2022”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top